জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১১৭তম জন্মদিন

প্রেম ও দ্রোহের কবি নজরুলের আগুনঝরা লেখনী আজও প্রেরণা যোগায় বাঙালিকে। কুসংস্কার, সাম্প্রদায়িকতা, সমাজিক প্রথার বিরুদ্ধে ছিলেন আমৃত্যু সোচ্চার। লিখেছেন গল্প, কবিতা, উপন্যাসসহ প্রায় তিন হাজার গান। আজ জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১১৭তম জন্মদিন।বাঙালির বিদ্রোহীচেতনার কবি কাজী নজরুল ইসলাম। পরাধীনতার শৃঙ্খলে বন্দি দেশবাসীকে দিয়েছেন মুক্তির মন্ত্র। চিন্তার দৈন্য ও সীমাবদ্ধতার বেড়াজাল থেকে মুক্ত করতে তার লড়াই আমৃত্যু।

জন্ম পশ্চিমবঙ্গে, বর্ধমানের চুরুলিয়া গ্রামে; ১৩০৬ সালের ১১ই জৈষ্ঠ্য। শৈশবে বাবাকে হারিয়ে, দারিদ্র্য-পীড়িত জীবনকে দেখেছেন খুব কাছ থেকে। শৈশবে কাজ করেছেন রুটির দোকানে, গান গেয়েছেন লেটো দলে। ডাকনাম দুখু মিয়া।

২২ বছরের সৃষ্টিশীল জীবনে তাঁর বিচিত্র লেখনী বাংলা সাহিত্যের অমূল্য সম্পদ। গল্প, কবিতা, নাটক, উপন্যাস ছাড়াও লিখেছেন প্রায় তিন হাজার গান। নিজে সুরারোপ করেছে বেশকিছু গানে।

ধূমকেতু, নবযুগ, লাঙল-এর পাতায় পাতায় তাঁর আগুন ঝরা লেখনী সন্ত্রস্ত করেছে ইংরেজ-শাসকদের। কালজয়ী; বিদ্রোহী; কবিতা মুক্তিকামী বাঙালি সমাজকে নাড়া দিয়েছে প্রচণ্ডভাবে। আনন্দময়ীর আগমনে; কবিতাটির জন্য রাজদ্রোহের অপরাধে হয় কারাবাস।

রণসঙ্গীতের রূপকার, জাতীয় কবি নজরুলের জীবনের শেষ সময়টুকু কেটেছে এদেশেই। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে হয় শেষশয্যা। যুগ থেকে যুগান্তরে বাঙালির হৃদয়ে উজ্জ্বল হয়ে আছেন প্রেম-দ্রোহ ও মানবতার এই মহানায়ক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *